সোনাগাছি এলাকায় অভিজিৎ নাচ শিখে আজ সেই নাচকেই জীবিকা করে জীবনধারণ করছে ।

0
1039
কলকাতার গিরিশপার্ক থেকে শোভাবাজার । এই এলাকার মূল রাস্তা বরাবর হেঁটে গেলেই দেখা মেলে নানা সাজে রমনীদের দাঁড়িয়ে থাকতে যাদের গলায় একটাই আহ্বান , যাবে নাকি ... । হ্যাঁ , ঠিকই ধরেছেন । এঁরা যৌনকর্মী । আর এলাকাটা হল সোনাগাছি । এশিয়ার বৃহত্তম যৌনব্যবসাকেন্দ্র । সেই এলাকায় ৩২ বছর কাটিয়ে দিলেন রাজনন্দিনী দে ( ৫২ ) । যৌনকর্মী হিসাবে । এখানে আসার কারণের মধ্যে তেমন কোন রোমাঞ্চকর কাহিনি নেই । জীবনের বয়স কুড়ি পের হতে না হতেই দুই সন্তানের জননী । ভেবেছিলেন স্বামী সন্তান নিয়ে সুখে বাকি দিনগুলি কাটিয়ে দেবেন । বাদ সাধল সতীন এসে । শুরু হল স্বামীর মারধোর । অবশেষে দুই সন্তানের মুখ চেয়ে নিজেই বাধ্য হয়ে বেছে নিলেন যৌনকর্মকেই । তবে সেই সন্তানরা বড় হয়ে মায়ের মুখ রেখেছেন । মায়ের জীবিকার কথা জেনেও ঘেন্নায় মুখ ফিরিয়ে নেন নি । বরং কাছে টেনে নিয়ে সংসারে ঠাঁই দিয়েছেন । নন্দিনী এখন নাতি নাতনী নিয়ে সুখে সংসার করছেন । আর এখানেই নন্দিনীর জীবন সংগ্রাম সার্থক হয়েছে
সোনাগাছির অন্তরমহল

<img src="http://dreamnews.in/wp-content/uploads/2017/02/2pp-225×300.jpg" alt="

সোনাগাছির অন্তরমহল
রাজকুমার দাস
কলকাতার গিরিশপার্ক থেকে শোভাবাজার । এই এলাকার মূল রাস্তা বরাবর হেঁটে গেলেই দেখা মেলে নানা সাজে রমনীদের দাঁড়িয়ে থাকতে যাদের গলায় একটাই আহ্বান , যাবে নাকি … । হ্যাঁ , ঠিকই ধরেছেন । এঁরা যৌনকর্মী । আর এলাকাটা হল সোনাগাছি । এশিয়ার বৃহত্তম যৌনব্যবসাকেন্দ্র ।

সেই এলাকায় বসবাস করে অভিজিৎ ঘোষ ( ২২ ) । ভাল নৃত্যশিল্পী । তবে সেই ভালো নৃত্যশিল্পী হয়ে ওঠার পিছনে অনেকগুলো ভালো কারণ রয়েছে । যেমন যৌনকর্মী পরিবারে জন্ম হওয়ার অপরাধে অভিজিৎ এর মাকে তার বাবার ত্যাগ করা । যৌনকর্মী দিদিমার ও মায়ের অত্যন্ত কষ্টের উপার্জনে অভিজিতের বড় হয়ে ওঠা । সোনাগাছি এলাকায় বসবাসের সুফল হিসাবে লেখাপড়া করতে না পারা ইত্যাদি । তবে এতকিছুর পরে অভিজিৎ নাচ শিখে আজ সেই নাচকেই জীবিকা করে জীবনধারণ করছে । এ সবের থেকেও বড়কথা , অভিজিৎ তার মা ও দিদাকে খুব ভালবাসে । তাদের পারিবারিক সম্পর্কে দিদার জীবিকা কোন প্রভাব ফেলে নি । আর এইখানেই বোধহয় অভিজিতের জিৎ ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here