দুঃশলার পুরুষতান্ত্রিক সমাজে যুদ্ধবিরোধী অবস্থানের জন্য আমাদের আন্তরিক শ্রদ্ধা

0
727
দুঃশলার পুরুষতান্ত্রিক সমাজে যুদ্ধবিরোধী অবস্থানের জন্য আমাদের আন্তরিক শ্রদ্ধা

দুঃশলার পুরুষতান্ত্রিক সমাজে যুদ্ধবিরোধী অবস্থানের জন্য আমাদের আন্তরিক শ্রদ্ধা

দুঃশলার পুরুষতান্ত্রিক সমাজে যুদ্ধবিরোধী অবস্থানের জন্য আমাদের আন্তরিক শ্রদ্ধা

Artist – Amaresh Mukhopadhyay
মহাকাব্যে উপেক্ষিতা

মহুয়া ভট্টাচার্য্য

দুঃশলার পুরুষতান্ত্রিক সমাজে যুদ্ধবিরোধী অবস্থানের জন্য আমাদের আন্তরিক শ্রদ্ধা

ধৃতরাষ্ট্র ও গান্ধারীর একমাত্র কন্যা ও কৌরব-পাণ্ডবদের একমাত্র ভগ্নী দুঃশলা পরবর্তীকালে সিন্ধুরাজ জয়দ্রথের স্ত্রী । জন্ম-অবহেলিতা দুঃশলা পুরুষতান্ত্রিক আধিপাত্য, বহুবিবাহ প্রথা ও পুরুষের লাম্পট্যের শিকার । পিতৃপরিবারে অনাদর ও স্বামীর পরিবারে অবাঞ্ছিতা দুঃশলার স্বামী শাল্বদেশে পুনর্বিবাহের উদ্দেশ্যে রওনা হলে পথে কাম্যকবনে দ্রৌপদীর রূপে মুগ্ধ হয়ে তাঁকে হরণ করতে গেলে পান্ডবদের দ্বারা যথাযথ শিক্ষা পেলে স্বামীকে ঘৃণা করেন । পরে শিবের বরে জয়দ্রথ একদিনের জন্য পান্ডবদের পরাজিত করার ক্ষমতাপ্রাপ্ত হলে ক্ষত্রিয়ার্নী দুঃশলা যুদ্ধকেই অন্তরে অনুমোদন করেন স্বামীর অপমানের প্রতিশোধ হিসাবে ।
কিন্তু কুরুক্ষেত্রের অর্জুনের হাতে জয়দ্রথের মৃত্যু হলে দুঃশলা শিশুপুত্র সুরথকে রাজ্যাভিষিক্ত করেন , সর্বনাশা যুদ্ধের বিরুদ্ধে সোচ্চার হন । অশ্বমেধ যজ্ঞকালে অর্জুনের আগমনে ভীত মূর্চ্ছিত সুরথ মৃত্যুমুখে পতিত হলে মাতা দুঃশলা অর্জুনের কাছে মিনতি জানান । অর্জুন তখন সুরথের নাবালক পুত্রকে সিন্ধুরাজ্যের সিংহাসনে প্রতিষ্ঠিত করে দুঃশলাকে সান্তনা দেন । বৃহৎ ক্ষত্রিয় পুরুষতান্ত্রিক সমাজে দুঃশলার যুদ্ধবিরোধী বিপ্রতীপ অবস্থান আমাদের মানবিক শ্রদ্ধা দাবী করে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here