ট্রান্সজেন্ডারদের জন্য পাবলিক প্লেসে প্রথম টয়লেটের কাজ শুরু বহরমপুরে, অরুনাভদের লড়াই সফল

0
877
বাঁদিকে অরুনাভ নাথ ও ডানদিকে সেই ব্যানার। ছবি সৌজন্যে অরুনাভ নাথ।

ট্রান্সজেন্ডারদের জন্য পাবলিক প্লেসে প্রথম  টয়লেটের কাজ শুরু বহরমপুরে, অরুনাভদের লড়াই সফল

বাঁদিকে অরুনাভ নাথ ও ডানদিকে সেই ব্যানার। ছবি সৌজন্যে অরুনাভ নাথ।

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ গতমাসের ঘটনা। বহরমপুরের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা মধ্যবাংলার সংগ্রামের পক্ষ থকে অরুনাভরা বহরমপুর পুরসভার কাছে ট্রান্সজেন্ডারদের জন্য পৃথক টয়লেট তৈরির দাবি জানিয়ে স্মারকলিপি জমা দিয়েছিলেন। তখন পুরসভার চেয়ারম্যান প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে, তিনি তাঁর সাধ্যমত চেষ্ঠা করবেন। সেই চেষ্টার হাতে নাতে ফল পাওয়া গেল মাস পের হতে না হতেই। পুরসভার পক্ষ থেকে এলাকা চিহ্নিত করে ব্যানার টাঙিয়ে দেওয়া হল Proposed Toilet for Transgender by Courtesy BERHAMPORE MUNICIPALITY  পুরসভার এ হেন দ্রুত উদ্যোগে খুবই খুশি অরুনাভরা। এ প্রসঙ্গে মধ্যবাংলার সংগ্রামের কর্ণধার অরুনাভ ওরফে অরুনা নাথের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আমরা অত্যন্ত গর্বিত যে রাজধানী থেকে এত দূরে থেকেও আমরা কমিউনিটির জন্য এভাবে লড়াই করতে পারছি এবং সাফল্য অর্জন করছি। এর জন্য তিনি বিশেষ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করতে চান পুরসভার চেয়ারম্যান কে। এর পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, আমাদের রাজধানী তে টি জি বোর্ড অবস্থান করলেও তাঁরা এখনও পর্যন্ত ট্রান্সজেন্ডারদের জন্য চোখে পড়ার মতো কোন দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে পারেন নি, পারেন নি ডিস্ট্রিক্ট সেল গঠন করতে। জানি না আদৌ কোনদিন সেসব হবে কিনা। কিন্তু কাজ করতে চাইলে যে কাজ করা যায় আমাদের এই টয়লেট তৈরির উদ্যোগ তার উজ্জ্বল নমুনা। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা সারাবছর কমিউনিটির পাশে থাকতে নানা উদ্যোগ নিয়ে থাকে। কখনও স্বাস্থ্যচেতনা শিবির, কখনও টোল ফ্রি নাম্বার চালু করা তার উদাহরণ। যাইহোক বহরমপুর পুরসভার উদ্যোগে পাবলিক প্লেসে ট্রান্সজেন্ডারদের জন্য এই পৃথক টয়লেট নির্মিত হলে তা হবে আমাদের রাজ্যের মধ্যে প্রথম। আর এই সাফল্যের সব থেকে বড় কারিগর হবেন মধ্যবাংলার সংগ্রামের কর্ণধার অরুনাভ নাথ এবং বহরমপুর পুরসভার চেয়ারম্যান নীলরতন আঢ্য

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here