আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রকাশ পেল প্রাবন্ধিক মানস চক্রবর্তীর লেখা প্রসঙ্গঃ শক্তিপদ রাজগুরু

0
375

আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রকাশ পেল প্রাবন্ধিক মানস চক্রবর্তীর লেখা প্রসঙ্গঃ শক্তিপদ রাজগুরু  

বাঁদিক থেকে মানস চক্রবর্তী, উৎপল কুমার ধারা, বিমল পন্ডিত, প্রণব দাস। ছবি-অবকাশে সঞ্জয়

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ  মাত্র চার বছর আগে। এমনই এক ১২ই জুন। ২০১৪ সাল। চলে গেলেন বাংলা তথা সর্বভারতীয় কথা সাহিত্য ও চলচ্চিত্রের মহাপ্রতিভাবান কিংবদন্তী ব্যক্তিত্ব শক্তিপদ রাজগুরু। ৯২ বছর বয়সে। ‘মেঘে ঢাকা তারা’-র মতো অসামান্য সৃষ্টি যার সেই সাহিত্যিকের মহাপ্রয়ানে সাহিত্য জগৎ যেন সেভাবে শোকাচ্ছন হয় নি। মিডিয়া সেভাবে তাঁকে নিয়ে পর্যালোচনা করতে উদ্যোগী হয় নি। কেন এ নীরাবতা? কোথাও যেন তাঁর প্রতি একরকম উদাসীনতা। প্রসঙ্গ রাজগুরু লেখার জন্য তথ্য সংগ্রহ গিয়ে এই উদাসীনতা প্রাবন্ধিক মানস চক্রবর্তী বড় কঠোরভাবে প্রত্যক্ষ করেছেন। এ প্রসঙ্গে তাঁর আর একটি উপলব্ধি, যে আনন্দবাজার গোষ্ঠীর ‘দেশ’ পত্রিকায় শক্তিপদ রাজগুরুর লেখা গল্প প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল, সেই আনন্দবাজার গোষ্ঠী পরবর্তীকালে কেন তাঁর উপন্যাস প্রকাশ করে নি? আর আনন্দবাজার তাঁর লেখা প্রকাশ করে নি বলেই কি মিডিয়ার এই উদাসীনতা? যাইহোক, ‘আনন্দ’ তাঁকে গ্রহণ করলেও মানুষকে আনন্দ দিতে তিনি আজীবন লিখে গিয়েছেন। বাংলা সাহিত্যে আর কারও উপন্যাস নিয়ে এত চলচ্চিত্র নির্মান হয় নি। উত্তম কুমার থেকে শুরু করে মিঠুন-প্রসেনজিৎ, অন্যদিকে অমিতাভ বচ্চন সকলেই তাঁর লেখা উপন্যাস নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। এটুকুতেই অনুমেয় তাঁর কী বিশাল জনপ্রিয়তা ছিল। আর সেই জনপ্রিয়তা তথা তাঁর বিপুল সাহিত্য ভান্ডারের কথা প্রাবন্ধিক মানস বড় নিপুনভাবে তুলে ধরেছেন এই ‘প্রসঙ্গঃ শক্তিপদ রাজগুরু’ গ্রন্থে।  তাঁর কর্মজীবন-ব্যক্তিজীবন-সাহিত্যজীবন সবকিছুর পুঙ্খানুপূঙ্খ বিবরণের পাশাপাশি বিপুল তথ্য সহযোগে লেখা এই প্রবন্ধগ্রন্থ কে এককথায় বলা যায়, এ গ্রন্থ শক্তিপদ রাজগুরুর সম্পর্কে ছাপার অক্ষরে বাংলা সাহিত্যের গুগুল। যাইহোক শক্তিপদ রাজগুরুর পঞ্চম প্রয়াণ দিবসে এক ঘরোয়া সাহিত্য আড্ডার মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রকাশ পেল প্রাবন্ধিক মানস চক্রবর্তীর লেখা প্রসঙ্গঃ শক্তিপদ রাজগুরু। প্রকাশ অনুষ্ঠানে স্বনামধন্য উপস্থিতি ছিল বিশিষ্ট প্রাবন্ধিক ও গবেষক বিমল পন্ডিত, বিশিষ্ট ছড়াকার উৎপল কুমার ধারা, বিশিষ্ট সংগীতশিল্পী প্রনব দাস, কবি বসন্ত প্রামানিক সহ বিশিষ্ট মানুষজন। আড্ডানুষ্ঠানের উদ্বোধন হয় প্রণব দাসের নিজস্ব সুরারোপিত নজরুল গীতির মধ্য দিয়ে। তারপরেই হয় গ্রন্থ প্রকাশ। প্রসঙ্গঃ শক্তিপদ রাজগুরু সম্পর্কে লিখতে গিয়ে নিজস্ব যেসব  অভিজ্ঞতা কথা  হয়েছে সে প্রসঙ্গে বক্তব্য রাখেন প্রাবন্ধিক মানস চক্রবর্তী। প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বক্তব্য রাখেন প্রকাশক অবকাশে সঞ্জয়। যাইহোক এরপর কবিতা পাঠ, গান, আলোচনার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

 

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here