মোমবাতি মিছিল নয়, মনে আগুন জ্বালনোর বার্তা দিতে আসছে চর্যাপদের ‘লজ্জা’

0
437

মোমবাতি মিছিল নয়, মনে আগুন জ্বালনোর বার্তা দিতে আসছে চর্যাপদের ‘লজ্জা’

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ এ এক সত্যিই অন্যধারার শ্রাবণের মিলন সন্ধ্যা যার আয়োজনে পূর্ব বরিষা অলিন্দ ও দমদম ঐক্য। যেখানে মিলিত হবে রূপান্তরকামী-সমকামী-উভকামী-হিজড়া সহ সকল শ্রেণির মানুষ। আর সেই মিলনের মাঝে অনুষ্ঠিত হবে আসানসোল চর্যাপদের এক ভিন্নধারার নাটক তথা ডকু থিয়েটার ‘লজ্জা’। নিছক গল্প বলার তাগিদে এ নাটক নির্মিত নয়, বরং সুদীর্ঘ সাত বছর ধরে সংগৃহীত তথ্যের আধারে নির্মিত ‘লজ্জা’। নাটকের বিষয় এই মুহুর্তে সমাজের সবথেকে জ্বলন্ত সমস্যা ধর্ষণ যা সেই দ্রৌপদী থেকে পার্কস্ট্রিট হয়ে কামদুনি ঘুরে আপনার পাশের বাড়ি বা আপনার বাড়িতেই। এ লজ্জা কার হওয়া উচিৎ? যে ধর্ষিত হচ্ছে! নাকি যে ধর্ষণ করছে তার? নাকি আমাদের সকলের? এরকম নানা প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হলে  আগামী ২৯ শে জুলাই, ১৮ রবিবার বিকাল ৫টায় পাইকপাড়া মোহিত মৈত্র মঞ্চে আসতে হবে। নাটকের এ হেন বিষয়বস্তু সম্পর্কে নাট্যকার তথা পরিচালক রুদ্রপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী বলেন, আমাদের উদ্দেশ্য মানুষের ঘুমন্ত চেতনাকে জাগিয়ে তোলা। আমরা লজ্জিত হলেই, মেয়েরা ঘরে বাইরে একটু নিশ্চিন্তে থাকতে পারবে।

পরিচালক- রুদ্রপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী, চর্যাপদ, আসানসোল

যাইহোক, যৌনসংখ্যালঘুদের স্বপ্নের অঙ্গন বলে প্রচারিত শ্রাবণের মিলন সন্ধ্যার মতো এক অনুষ্ঠানে এমন নাটক করার আমন্ত্রণ পেয়ে তিনি আনন্দিত। রূপান্তরকামীদের প্রতিভা সম্পর্কে তিনি জ্ঞাত আছেন। কিন্তু তাদের আয়োজনে কোন অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার সুযোগ তিনি পান নি। পূর্ব বরিষা অলিন্দ ও দমদম ঐক্যের পক্ষ থেকে আয়োজকদের অন্যতম সুজয় ভৌমিক সেই সুযোগ করে দেওয়ায় তিনি আপ্লুত।  তিনি আরও বলেন, সমাজের ব্যঙ্গ দৃষ্টিকে উপেক্ষা করে যারা মনের মুক্তিতে বিশ্বাসী, সেইসব রূপান্তরকামীদের কুর্নিশ।  অন্যদিকে সুজয় ভৌমিক বলেন, ‘লজ্জা’ যেভাবে ধর্ষনের বিরুদ্ধে গর্জে উঠেছে তার মাধ্যমে আমরাও সমাজের সমস্ত রকম ধর্ষণের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছি। আর আমরা বিশ্বাস করি, শিল্পীর প্রতিবাদের ভাষা তার শিল্পকর্মেই ফুটে উঠুক।  যাইহোক, চর্যাপদের ‘লজ্জা’ ছাড়াও  অনুষ্ঠিত হবে আরও একটি পথ নাটক ‘ওরে বিহঙ্গ’ যা মোহিত মৈত্র মঞ্চের প্রাঙ্গণে পরিবেশিত হবে। পরিবেশনায় পূর্ব বরিষা অলিন্দ। নাটক ছাড়াও সংগীত-নৃত্য-আলোচনা ইত্যাদি থাকছে। এছাড়াও অনুষ্ঠানে সম্মাননা জ্ঞাপন করা হবে যাত্রাজগতের দিকপাল চপল রানী ওরফে চপল ভাদুরী এবং লোকশিল্পে বিশেষ অবদানের জন্য মনোরমা বাঈকে। সবমিলিয়ে শ্রাবণের মিলন সন্ধ্যা যে এক স্মরনীয় মিলন সন্ধ্যা হতে চলেছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here