সমলিঙ্গের যৌনতাও স্বাভাবিক, ঐতিহাসিক রায় সুপ্রিম কোর্টের। উচ্ছ্বাস ভারতবর্ষ জুড়ে

0
465
গ্রাফিক্স- Abakaashe Sanjoy

সমলিঙ্গের যৌনতাও স্বাভাবিক, ঐতিহাসিক রায় সুপ্রিম কোর্টের। উচ্ছ্বাস ভারতবর্ষ জুড়ে

গ্রাফিক্স- Abakaashe Sanjoy

অবকাশে সঞ্জয়ঃ ১৫৭ বছর আগে। অর্থাৎ ১৮৬১ সালে ভারতীয় পিনাল কোড বলেছিল যে যৌনতা এগেনস্ট অফ নেচার বা আনন্যাচারাল যৌনতা তা এখন থেকে নিষিদ্ধ। এবং সেই নিষেধ অমান্য করে যদি কেউ ওই ধরনের আনন্যাচারাল যৌন আচরণ করেন তা হবে শাস্তিযোগ্য অপরাধ। তারপর, গঙ্গা দিয়ে অনেক জল গড়িয়েছে। আসমুদ্রহিমাচল উত্তাল হয়েছে। উচ্চকন্ঠে বলেছে, নাঃ! পুরুষে-পুরুষে বা নারীতে নারীতে যৌনক্রিয়া আনন্যাচারাল নয়। কিন্তু উচ্চকন্ঠে বললেও একশো কোটির ভিড়ে সেই কন্ঠস্বর এতই মৃদু শোনাতো যে ভারতীয় পিনাল কোড তাতে কর্নপাতই করতো না। তবে কবি বলেছেন, হাল ছেড়ো না বন্ধু, বরং কন্ঠ ছাড়ো জোড়ে। সেই বিশ্বাসে বিশ্বাস রেখে দিনের পর দিন লড়াই চলেছে। সংবাদপত্রে-সোস্যাল মিডিয়ায়-রাজপথের পদযাত্রায়- কবির কলমে- সাহিত্যিকের সাহিত্যে- নাটকে-সিনেমায় এবং আদালতে। এ হেন লড়াই সাফল্য না পেয়ে কি থাকতে পারে? পারে না। সাফল্য আসতে বাধ্য। যার প্রথম প্রমাণ পাওয়া গিয়েছিল  ২০০৯ সালে দিল্লী হাইকোর্টের এক ঐতিহাসিক রায়ে। দিল্লী হাইকোর্ট সেদিন ৩৭৭ ধারা কে অবৈধ বলেছিল।  তবে ২০১৩ সালে সুপ্রিম কোর্ট দিল্লী হাইকোর্টের সেই রায় বাতিল করেছিল। কিন্তু লড়াইকারীরা তাতে থেমে যান নি। আবার নতুন করে লড়াই শুরু করেন এবং সেই লড়াইয়ের ফলশ্রুতিতে  অবশেষে আজ অর্থাৎ ৬ই সেপ্টেম্বর ২০১৮ সালে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিল, সমলিঙ্গে যৌন সম্পর্ক অপরাধ নয়। প্রত্যেকের নিজের ইচ্ছে মতো বাঁচার অধিকার রয়েছে। এককথায় সমকামিতা আর অপরাধ নয়।

সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রর নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতি আজ সেই ঐতিহাসিক রায় ঘোষনা করে বলেন, সব নাগরিককে সমান অধিকার দিতে হবে। সমকামিতাকে অপরাধ করে রাখা অযৌক্তিক ও অসমর্থনীয়।

সকালে সুপ্রিম কোর্টের এই রায় শোনার পরেই ভারতবর্ষের লক্ষ লক্ষ সমপ্রেমীরা উচ্ছ্বাসে মেতে ওঠেন। শুরু হয়ে যায় আবির খেলা, নাচ, গান এবং অবশ্যই সোস্যাল মিডিয়ায় সেই আনন্দ প্রকাশ নিয়ে স্ট্যাটাস আপডেট করা।  যেমন  বিখ্যাত অ্যাক্টিভিস্ট তথা হামসফর ট্রাস্টের কর্নধার অশোকরাও কভি বলেন, অবশেষে আমরা জাস্টিস পেলাম। আজাদ হলাম।  ভারতের প্রথম রূপান্তরিত নারী হিসেবে কলেজের প্রিন্সিপ্যাল হয়েছেন যিনি সেই মানবী বন্দ্যোপাধ্যায় নিজস্ব ফেসবুক ওয়ালে ক্যালকাটা টাইমসের একটি ভিডিও শেয়ার করেন যেখানে তিনি বেলুন উড়িয়ে এই সুপ্রিমকোর্টের এই ঐতিহাসিক রায়কে স্বাগত জানিয়ে আনন্দযাপন করছেন। তেমনি পশ্চিমবঙ্গের বিখ্যাত ট্রান্সজেন্ডার অ্যাক্টিভিস্ট তথা ১৮ টি জেলা জুড়ে নিজস্ব নেটওয়ার্ক গড়ে তোলা এটিএইচবি বা অলবেঙ্গল ট্রান্সজেন্ডার/ হিজড়া অ্যাশোসিয়েশানের এর কর্ণধার  রঞ্জিতা সিনহা যেমন নিজস্ব ফেসবুক ওয়ালে লেখেন, Today We are Independent  আজ আমরা স্বাধীন।  অন্যদিকে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক তথা গে অ্যাক্টিভিস্ট প্রতুলানন্দ দাস লেখেন, সো ফাইনালি উই আর নট ক্রিমিনাল। থ্যাংক ইউ সুপ্রিম কোর্ট। এভাবে প্রায় প্রত্যেকেই কিছু না কিছু লিখে নিজস্ব উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। মেতে উঠেছেন আনন্দউৎসবে যা দেখে একটাই কথা বলা যায় ভারতবর্ষের আকাশে আজ আর মেঘ নেই। আছে শুধুই রামধনু।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here