কেন তৃতীয় পরব, কৃষ্ণ দ্বৈপায়ন বাণী উদ্ধৃত করে উত্তর দিলেন অবকাশে সঞ্জয়

2
206
পরবের এক বিশেষ মুহুর্ত। ফোটোওয়ালা- চন্দন মন্ডল

কেন তৃতীয় পরব, কৃষ্ণ দ্বৈপায়ন বাণী উদ্ধৃত করে উত্তর দিলেন অবকাশে সঞ্জয়

পরবের এক বিশেষ মুহুর্ত। ফোটোওয়ালা- চন্দন মন্ডল 
  • বিশেষ প্রতিনিধিঃ অগ্রহায়ণ মাসের গ্রাম বাংলা মানেই পরবের মাস। ধান কাটা শুরু হয়ে গিয়েছে দিকে দিকে। কদিন পরেই সেই নতুন ধানে হবে নবান্ন। সেই পরবের আঁচ গায়ে মাখতে ড্রিমনিউজও মেতে উঠেছিল পরবে। তবে সেই পরব নবান্নের পরব নয়, তার নাম তৃতীয় পরব। কেন এই তৃতীয় পরব? কে বা তৃতীয়? তৃতীয় যখন প্রথম বা দ্বিতীয় কারা। এর সুন্দর উত্তর দিয়েছেন কৃষ্ণ দ্বৈয়াপন বেদব্যাস। কুরুক্ষেত্র যুদ্ধ শুরুর আগে কৃষ্ণ কোন পক্ষে থাকবেন সেই নিয়ে সিংহানে বসা, কৃষ্ণের চোখ মেলে তাকানো, পান্ডব পক্ষে যোগদান এসব কথা সকলের জানা। তবে অনেকেই হয়তো জানেন না নারদের পরামর্শে আরও একটা পরীক্ষা দিতে গিতে গিয়ে চরম ব্যর্থ হন দুর্যোধন। তিনটি মালা পরানো নিয়ে এক সুন্দর পরীক্ষা নেওয়া হয়েছিল। প্রথম, দ্বিতীয় আর তৃতীয় পুরুষের গলায় পরাতে হবে সেই মালা। অহংকারী দুর্যোধন বলেন আমিই প্রথম, আর আমার ভাই দুঃশাসন দ্বিতীয়। সেই একই প্রশ্নের উত্তরে যুধিষ্ঠির বলেন, প্রথম যদি কেউ হয়ে থাকেন তাহলে পুরুষোত্তম কৃষ্ণই প্রথম, আর হে নারদ তুমি তো মানব আর দেবতার যোগাযোগের মাধ্যম অর্থাৎ তুমিই দ্বিতীয়। আর তৃতীয় হলাম গিয়ে আমি। অন্যকে তৃতীয় বলার অধিকার আমার নেই। এই ছিল যুধিষ্ঠিরের বিনয়। ড্রিমনিউজও সেই বিনম্রতার সঙ্গে  আয়োজন করেছিল তৃতীয় পরবের। পরবের রূপকার অবকাশে সঞ্জয় বলেন, এ ধরনের পরব আয়োজনের শুরুতেই আমাদের মনে পড়েছিল, মহাভারতের সেই অমোঘ উক্তি- “তৃতীয়াং প্রকৃতিং গতঃ”
  • অজ্ঞাতবাসপর্বে কি ছদ্মবেশে নিজেকে লুকোবে। যুধিষ্ঠিরের এ প্রশ্নের উত্তরে অর্জুন বলেছিলেন, আমি তৃতীয় প্রকৃতির মধ্যে নিজেকে অন্তরিত করব।
  • ২০১৪ সালে ভারতীয় সুপ্রিমকোর্ট ও রূপান্তরকামী সমাজও যেন সেই সময়কালে উপস্থিত হয়েছিল। ১৫ই এপ্রিল সুপ্রিমকোর্ট তার ঐতিহাসিক রায় ঘোষণা করে বলে ওঠেন, অল ট্রান্সজেন্ডার আর থার্ডজেন্ডারস।
  • ওই অজ্ঞাতবাস পর্বের শেষদিনে অর্জুন তৃতীয় প্রকৃতির সাজেই ভীষ্ম-দ্রোণ-কৃপা- দুর্যোধন-কর্ণ সহ সহ সকল বীরযোদ্ধা কে পরাজিত করতে সক্ষম করেছিলেন। প্রমাণ করেছিলেন তিনিই শ্রেষ্ঠ।
  • আমাদের বর্তমান সময়ে সুপ্রিমকোর্ট যাদের তৃতীয় প্রকৃতি বলে অভিহিত করেছেন তাঁরাও নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করেছেন, করছেন। তাঁদেরই মধ্যে কেউ হয়েছেন আইনজীবী, কেউ বিচারক, কেউ পুলিশ, কেউ সাহিত্যিক, কেউ শিল্পী। কেউ সমাজকর্মী, কেউ রাজনীতিবিদ, এম এল এ, এম পি প্রমুখ।
  • তেমনই কিছু কীর্তিময়ীর উজ্জ্বল উপস্থিতিতে এই তৃতীয় পরব।
  • পরবের একদিকে উপস্থিত ছিলেন প্রশাসনিক প্রতিনিধি, অন্যদিকে ছিলেন জনপ্রতিনিধি বৃন্দ। আর ছিলেন জীবন জীবিকার প্রতিকূল পরিবেশেও সাফল্য অর্জনকারী কিছু কীর্তিময়ী মানুষ। এই তিন দিকের কিছু দিকপাল মানুষের উপস্থিতিতে যে মিলন পরব, তাই তো তৃতীয় পরব।

2 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here