পল্লীমুকুরের আয়োজনে সাহিত্যআড্ডা, সেখানেই উদ্বোধন অবকাশে-র

0
35
অবকাশের উদ্বোধনের এক মুহুর্ত

পল্লীমুকুরের আয়োজনে সাহিত্যআড্ডা, সেখানেই উদ্বোধন অবকাশে-র

অবকাশের উদ্বোধনের এক মুহুর্ত

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ প্রবাহমান নদী যেমন বয়ে যেতে যেতে হঠাৎ কোন এক স্থানে এসে বাঁক নেয়, নতুন কোন নাম নেয়, এ যেন অনেকটা তেমনি। সাহিত্যিক সুব্রত হালদার সম্পাদিত ‘পল্লীরসুর’ পঁয়তাল্লিশ বছর ধরে চলার পর হঠাৎ ছন্দপতন। আইনি কারণে পল্লীরসুর  এখন পল্লীমুকুর। সেই পল্লী মুকুরের আনুষ্ঠানিক প্রকাশ হল দক্ষিণ চব্বিশ পরগণার ফলতার দিঘিরপাড়ে, সাহিত্যিক সুব্রত হালদারের বাড়িতে। এক ঘরোয়া সাহিত্যআড্ডায়। যে আড্ডায় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ থেকে আগত বিশিষ্ট সাহিত্য সংগঠক হায়দার আলি চৌধুরী, কবি সঞ্জীব কুমার রাহা, গল্পকার অভিজিৎ গুপ্ত, কবি হাবিবুর রহমান চৌধুরী, গল্পকার উপল দত্ত, প্রাবন্ধিক অলক মন্ডল, কবি সুমিত মোদক, কবি মানস চক্রবর্ত্তী,

অবকাশের প্রচ্ছদ

ছড়াকার শিশির পাইক, কবি দিলীপকুমার ঘোষ, কবি অনন্ত ভট্টাচার্য্য, কবি ভীম ঘোষ, গল্পকার কবিতা কল্পনা, কবি উত্তম মন্ডল প্রমুখ। অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী ভাষণ দিতে গিয়ে সাহিত্যিক তথা বাগ্মী এবং পত্রিকার সভাপতি অমরেশ মুখোপাধ্যায় পল্লীরসুর থেকে পল্লী মুকুর এর পথ চলা নিয়ে বিস্তারিত বলেন। অনুষ্ঠানে আবৃত্তিকার তথা কবি শচীন রায়চৌধুরীর সঞ্চালনা এবং সুখেন্দু নারায়ণ নস্করের সংগীত অন্য মাত্রা দেয়।

 

পল্লী মুকুর এর প্রচ্ছদ

সেই অনুষ্ঠানেই প্রকাশিত হয় অবকাশে পত্রিকার জানুয়ারি মাসের ‘বাউনি’ সংখ্যা। এর উদ্বোধন প্রসঙ্গে সম্পাদক অবকাশে সঞ্জয় বলেন, বিষয় ভিত্তিক মুক্তগদ্য ও এক ডজন অনুগল্প সহযোগে প্রতিমাসে প্রকাশিত হচ্ছে ‘অবকাশে’। বিষয় হিসাবে গ্রাম বাংলার নানা লোকাচার তুলে ধরার চেষ্টা হচ্ছে যা ফিরিয়ে আনছে পুরোনো স্মৃতি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here